bangla pdf booksbangla programming books

পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড pdf download

পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড pdf download link!

নাম:- পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড pdf download

লেখক:- তামিম শাহারিয়ার সুবিন  

পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড প্রকাশনী:- দ্বিমিক প্রকাশনী।  

পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড বইয়ের প্রথম কিছু অংশ :-   

অধ্যায় ১: ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম

কম্পিউটারে প্রােগ্রামিং করে আমাদেরকে বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সমাধান করতে হয়। সেই সমস্যাগুলাের জটিলতা বিভিন্ন পর্যায়ের হতে পারে। একটি সমস্যা যােগ-বিয়ােগ করার মতাে সহজ যেমন হতে পারে, তেমনি একটি শহরের রাস্তাঘাট ও সেখানে যানবাহন চলাচলের তথ্য বিশ্লেষণ করে কোথায় কোথায় বিকল্প সড়ক তৈরি করতে হবে, সেটি বের করার মতাে জটিল হতে পারে। 

সমস্যা সহজ হােক কিংবা জটিল, আমরা কম্পিউটার প্রােগ্রাম লিখে সেই সমস্যা সমাধান করার চেষ্টা করি। একটি সমস্যা সমাধান করার জন্য যখন আমরা প্রােগ্রাম তৈরি করি, সেই প্রােগ্রামটির কেবল সঠিক ফলাফল দিলেই হবে না, সেই সঙ্গে গ্রহণযােগ্য সময়ের মধ্যে ফলাফল দিতে হবে। 

এজন্য কম্পিউটার বিজ্ঞানী ও সফটওয়্যার প্রকৌশলীদের ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম জানতে ও শিখতে হয়।

ডেটা স্ট্রাকচার (Data Structure)

ডেটা স্ট্রাকচার হচ্ছে কম্পিউটারের মেমােরিতে বিভিন্নভাবে ডেটা সাজানাে ও সংরক্ষণ করার পদ্ধতি। পাইথন শিখতে গিয়ে আমরা ইতিমধ্যে দেখেছি যে, কিছু কিছু প্রােগ্রামে ডেটা নিয়ে কাজ করতে গেলে কেবল ভ্যারিয়েবল ব্যবহার করলেই চলে, আর অনেক প্রােগ্রামেই আমাদের পাইথনের বিভিন্ন বিল্ট-ইন ডেটা স্ট্রাকচার (যেমন- সেট, ডিকশনারি, লিন্ট, টাপল) ব্যবহার করতে হয়। 

কিন্তু, যখন আমরা আরাে বড় পরিসরে কাজ করব, কিংবা, বিশেষ ধরনের কোনাে কাজ করব, তখন আমাদের আলাদাভাবে ডেটা সাজাতে হবে ও সংরক্ষণ করতে হবে, ডেটাগুলাের মধ্যে সম্পর্ক তৈরি করতে হবে, ডেটার ওপর বিভিন্ন অপারেশনের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। 

এই কাজ সম্ভব করার জন্য তাই আমাদের বিল্ট-ইন ডেটা স্ট্রাকচারগুলাের বাইরেও আরাে ডেটা স্ট্রাকচার তৈরি ও ব্যবহার করা জানতে হবে।

এই বইতে আমরা মােটামুটি সহজ ধরনের কিছু ডেটা স্ট্রাকচার শিখব। এসব ডেটা স্ট্রাকচার যেকোনাে প্রােগ্রামারেরই জানা উচিত। প্রতিটি ডেটা স্ট্রাকচার সম্পর্কে পড়ার সময় আমরা শেখার চেষ্টা করব যে, ডেটা স্ট্রাকচারটি কীভাবে তৈরি করতে হয়, কীভাবে একটি প্রােগ্রামে ব্যবহার করতে হয় এবং সেই ডেটা স্ট্রাকচারের বিভিন্ন অপারেশনের টাইম ও স্পেস কমপ্লেক্সিটি কেমন।

টাইম ও স্পেস কমপ্লেক্সিটি বিষয়ে পরের অধ্যায়ে বিস্তারিত আলােচনা করব।

পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড অধ্যায় ১ : ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম  –

অ্যালগরিদম হচ্ছে সমস্যা সমাধানের জন্য কিছু নির্দিষ্ট ধাপ। এই ধাপগুলাে আবার গাণিতিকভাবে প্রমাণিত।

অর্থাৎ, একটি সমস্যা সমাধানের জন্য যে অ্যালগরিদম দেওয়া হয়, সেটি গাণিতিকভাবে প্রমাণ করতে হয় যে, এই ধাপগুলাে অনুসরণ করলে সমস্যাটির সমাধান হবে। তবে, এই বইতে আমরা গাণিতিক প্রমাণ শিখব না, রং, বিভিন্ন ধরনের অ্যালগরিদমের সঙ্গে পরিচিত হব।

কম্পিউটার বিজ্ঞানে অসংখ্য অ্যালগরিদম রয়েছে, তাদের মধ্যে থেকে কেবল প্রাথমিক কিছু অ্যালগরিদমের সঙ্গেই আমরা পরিচিত হব এই পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড বইতে।

একটি অ্যালগরিদম ব্যবহার করে একটি নির্দিষ্ট সমস্যার সমাধান করা যায়। আবার, একটি নির্দিষ্ট সমস্যা একাধিক অ্যালগরিদম ব্যবহার করেও সমাধান করা যায়। আবার একটি অ্যালগরিদম দিয়ে একটি নির্দিষ্ট ধরনের বিভিন্নরকম সমস্যার সমাধান করা যায়। যেমন, ধরা যাক, সর্টিং সমস্যা যেখানে অনেক ডেটার সমাহারকে একটি নির্দিষ্ট ক্রমে সাজাতে হয়। 

ডেটা যদি সংখ্যাজাতীয় হয়, তাহলে ছােটো থেকে বড় বা বড় থেকে ছােটো ক্রমে। আবার এমনও হতে পারে যে, পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের নাম ও প্রাপ্ত নম্বর ক্রমান্বয়ে সাজাতে হবে।

অর্থাৎ, যে সবচেয়ে বেশি নম্বর পেয়েছে, তার নাম ও পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর থাকবে প্রথমে; তারপরে থাকবে যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছে তার নাম ও পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর—এভাবে সাজাতে হবে।

তাে, এই সর্টিং সমস্যার সমাধান করার জন্যই 20-30 রকমের অ্যালগরিদম আছে। তাদের মধ্যে কয়েকটি জনপ্রিয় অ্যালগরিদম হচ্ছে ইনসার্শন সর্ট, কুইক সর্ট, মার্জ সর্ট ইত্যাদি। প্রতিটি অ্যালগরিদমেরই আবার কিছু সুবিধা ও অসুবিধা রয়েছে। তাই আমাদের সেগুলাে সম্পর্কে।ভালােভাবে জানতে হবে, যেন প্রােগ্রাম লেখার সময় আমরা আমাদের সমস্যার ধরন অনুযায়ী সবচেয়ে উপযুক্ত অ্যালগরিদম ব্যবহার করতে পারি।

ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম কেন শিখব?

ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম অপেক্ষাকৃত জটিল একটি বিষয়। তাই ধৈর্য ধরে এবং পূর্ণ মনােযােগ দিয়ে পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড  বইটি পড়তে হবে। ওপরের অংশটুকু পড়ার পরেও যদি কারাে মনে হয়, কেন আমি কষ্ট করে ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম শিখব, তাদের জন্য আমি কিছু তথ্য দিচ্ছি• যারা কম্পিউটার বিজ্ঞান বিষয়ে পড়ছে কিংবা পড়বে, তাদের অ্যাকাডেমিক সিলেবাসে এই বিষয়ের ওপর একাধিক কোর্স আছে।

সেসব কোর্সে ভালাে করতে হলে ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম সম্পর্কে কিছু প্রাথমিক জ্ঞান থাকা প্রয়ােজন।

অধ্যায় ১:ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম

যারা অনেক ভালাে মানের সফটওয়্যার প্রকৌশলী হতে চায়, তাদের ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম শিখতে হবে। কারণ, অনেক রকম সফটওয়্যার তৈরির কাজে এগুলাে ব্যবহার করতে হবে।

ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম যেহেতু তুলনামূলকভাবে একটু জটিল বিষয়, তাই এগুলাে বুঝতে পারলে এবং এগুলাে নিয়ে চিন্তাভাবনা করতে পারলে সমস্যা বিশ্লেষণ করার দক্ষতা বাড়ে। আর এই দক্ষতা একজন ভালাে প্রােগ্রামার হতে গেলে অবশ্যই থাকতে প্রােগ্রামিং প্রতিযােগিতায় ভালাে করতে হলে ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম জানা থাকা লাগবেই। 

অনেক প্রােগ্রামিং সমস্যাই বিভিন্ন অ্যালগরিদম ও ডেটা স্ট্রাকচার ব্যবহার করে অনেক সহজে ও কম সময়ে সমাধান করা যায়।

দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সফটওয়্যার নির্মাণপ্রতিষ্ঠানে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার পদে নিয়ােগের জন্য ইন্টারভিউ বা ভাইভাতে ডেটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদমের জ্ঞান যাচাই করা হয়। তাই দেশের শীর্ষ প্রতিষ্ঠানগুলােতে কাজ করতে হলে এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কাজ করতে হলে এই বিষয়ে দক্ষ হতে হবে।

কিছু উচ্চতর বিষয়, যেমন- মেশিন লার্নিং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স) ইত্যাদি নিয়ে কাজ করতে হলে ডাটা স্ট্রাকচার ও অ্যালগরিদম অবশ্যই জানতে হবে।

অ্যালগরিদম লেখার বিভিন্ন পদ্ধতি আছে। একেবারে বর্ণনামূলকভাবে লেখা যেতে পারে, আবার প্রতিটি ধাপ আলাদাভাবে উল্লেখ করে লেখা যেতে পারে, আবার কখনাে বা সুডােকোড (Pseudocode) আকারে লেখা যেতে পারে। সুডােকোড হচ্ছে অনেকটা প্রােগ্রামের কোডের মতােই, তবে এই কোডের জন্য কোনাে কম্পাইলার বা ইন্টারপ্রেটার নেই।

মানুষের বােঝার জন্যই এই কোড। সুডােকোড দেখে প্রােগ্রামাররা তাদের পছন্দমতাে প্রােগ্রামিং ভাষায় কোড লিখতে পারবে। এই বইতে শুরুর দিকে অ্যালগরিদমগুলাে ধাপে ধাপে দেখানাে হবে। তবে পরের দিকে কেবল বর্ণনা করে পাইথন দিয়ে ইমপ্লিমেন্ট করা হবে। একাডেমিক প্রয়ােজনে (মানে কোর্সের পরীক্ষায়) অ্যালগরিদম লিখতে হলে একাডেমিক সিলেবাসে প্রস্তাবিত পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড pdf download বই অনুসরণ করে অ্যালগরিদম লিখলেই সবচেয়ে ভালাে হয়।

কপিরাইট আইনের কারণে পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড pdf download  বইটির পিডিএফ লিংক দেওয়া হবে না। 

পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখা ৩য় খন্ড বইটির হার্ড কফি ক্রয় করুন:- 

Rokomari.com  |     walfilife.com |Daraz.com.bd

এখন পর্যন্ত আপলোড করা অন্যান্য বইগুলো :-

ইমোশনাল মার্কেটিং। ✔ বিজ্ঞানের ভুল।

Tags

ADR Dider

Best bangla pdf download, technologies tips,life style and bool, movie,smartphone reviews site.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close
Close

Ad blocker detected

Plz turn off your ad blocker to continue in this website...