bangla pdf booksbest science fiction books

চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স bangla pdf download

▪bangla pdf /বুক রিভিউ (১):- চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স   ।

Cha coffe ar quantam mechanics bangla pdf book download.

  ▪ Cha coffe ar quantam mechanics /চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স bangla pdf book download  

▪নাঈম হোসেন ফারুকী

▪bangla pdf book সাইজ:- ৩ এম্বি। 

▪পার্সোনাল রেটিং : ৭.৫/১০ .

▪ কখনো কি ইচ্ছে হয়েছে কোয়ান্টাম মেকানিক্স বোঝার? আগ্রহ হয়েছে একটুও?

▪কোয়ান্টাম মেথড না, কোয়ান্টাম মেকানিক্স।

Cha coffe ar quantam mechanics bangla pdf download.

▪কণা আর তরঙ্গের দ্বৈততা,আলো আর রঙের খেলা,ফিল্ডের কাহিনী,ফার্মিয়ন আর বোজনের কথা, অনিশ্চয়তারর অনিশ্চিত জগৎ,এন্ট্যাঙ্গলমেন্ট কিংবা কোয়ান্টাম ভালোবাসা,কোয়ান্টাম কম্পিউটারের কার্যক্রম,শ্রোডিঙ্গারের সেই বিড়াল এবং অবশ্যই,সমীকরণ আর আমাদের সবার প্রিয় আলোচনার বিষয় মাল্টিভার্স কিংবা প্যারালাল ইউনিভার্সের ধারণা -এবং আরো অনেক অনেক কিছু জানার,বুঝতে পারার এবং অনুভব করতে পারার যদি বিন্দুমাত্র ইচ্ছা থাকে,তবে পড়তে পারেন চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স বইটি।

▪কোয়ান্টাম মেকানিক্স নাম শুনে খটমট লাগলেও,এই বইটি পড়ে তা একদমই মনে হবে না।বেসিক থেকে শুরু করার জন্য পারফেক্ট।

▪ পুরোটাই জটিল জটিল সমীকরণ দিয়ে ভরা না থাকলেও, শুধু পড়ে যাবার মতো বই না এটা,চা-কফি যেটা পছন্দ তার সাথে খাতা কলম নিয়েও বসতে হবে।

▪আর হ্যাঁ,বইটা পড়ার জন্য নাইন-টেনের ফিজিক্স আর ম্যাথ বুঝতে হবে। Happy learning ! 

▪বিঃদ্রঃ রেটিং কমার একটা কারণ হচ্ছে,বইটাতে বেশ কিছু প্রিন্টিং মিসটেক ছিলো,যা দৃষ্টিকটু এবং তা পাঠকের ভুল ধারণা সৃষ্টি করতে পারে।আমি প্রথম সংস্করণ পড়েছি,আশা করছি পরবর্তী সংস্করণগুলোতে ভুলগুলো থাকবে না। প্রিন্টিং মিসটেক বলতে শুধু বানান ভুল ইন্ডিকেট করছি না।

▪ চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স  বুক রিভিউ(২):-  

▪ চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স! প্রায় এক সপ্তাহ হল বইটা পড়ে শেষ করলাম। রিভিউ লিখব তা ভাবিনি। যা হোক, বইটি নাঈম হোসেন ফারুকী ভাইয়ের অনবদ্য প্রচেষ্টা। অনেক সহজ সরল ভাষায় লিখা বইটি। পরমাণু আবিষ্কারের ইতিহাস থেকে শুরু করে মাল্টিভার্স পর্যন্ত কণা জগতের অদ্ভুতুরে আচরণের কথা তুলে ধরা হয়েছে।

▪ Complex wave ব্যাপারটা সুন্দরভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। Schroedinger equation বোঝাতে শর্টটেকনিক ব্যবহার করা হয়েছে। একাডেমিক বইগুলোতে তা সুন্দরভাবে তুলে ধরা হলেও মাঝের গল্পগুলো পাওয়া যায় না। 

▪বক্কর বাই আর আক্কাস আলীর মাধ্যমে অনেক জটিল বিষয়গুলো উপলদ্ধি করা যায়।

বিজ্ঞানীদের মধ্যকার কথোপকথনগুলো বইটিতে পাওয়া যায়। আরেকটি আকর্ষণীয় বিষয় হল ‘চা পানের বিরতি’ (আমার পচ্ছন্দের ‘ওয়ার্নার হাইজেনবার্গ’) । 

▪আর বেশী ভাল লাগা অধ্যায় ‘ফার্মিওন আর বোসন’ এবং ‘পর্দার ওপারে’।

তবে ‘কোয়ান্টাম কম্পিউটার’ এবং ‘বেলের অসমতা’ আরেকটু ভাল ব্যাখ্যা আশা করেছিলাম। বইটি একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রদের জন্য ভাল, আবার অনার্স লেভেলে কিছু কাজে দিবে। নবম-দশম শ্রেণীতে এসব না বোঝায় ভাল।

  ▪আমার জানা বাংলায় কোয়ান্টাম মেকানিক্সের এ ধরণের বই আর একটিও নেই।

সবগুলোতে শুধু pop-science এর গল্পে ভরা থাকে, এগুলো পড়তে ভাল লাগলেও বিজ্ঞান তেমন জানা যায় না। তবে এই বইটি গল্পের সাথে কোয়ান্টাম মেকানিক্স অনুভব করতে শেখায়।

▪বুক রিভিউ(৩):- 

▪চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স bangla pdf book download 

▪By, নাঈম হোসেন ফারুকী

▪রেটিং – ৯/১০ 

▪মানুষ এক জীবনে দশ থেকে বার হাজার বই পড়তে পারে। পৃথিবীতে এখন পর্যন্ত কত বই পাবলিশ হয়েছে? কোটি? শতকোটি? তাই খুব সাবধানে এই লিমিট খরচ করা উচিত। 

▪এই বইটা সেই তালিকায় সন্দেহাতীত ভাবে ঢুকে যাবে। পদার্থবিজ্ঞানের সবচেয়ে কঠিন, সবচেয়ে দুর্বোধ্য, সবচেয়ে ভূতুড়ে বিষয়টি কি অবলীলায় হাসতে খেলতে আনন্দে লিখে ফেলেছেন লেখক নাঈম হোসেন ফারুকী! 

▪ক্লাস নাইন টেন থেকে শুরু করে অনার্সের সকল ছাত্রের জন্যে এই বইটা অবশ্যপাঠ্য। 

▪কখন যে এতো মজা করে, কৌতুকের মাধ্যমে, আলু-পটল কেনার মতো করে ফিজিক্সের সবচেয়ে জটিল বিষয় মগজের ব্যাগে পুরে ফেলেছি টেরই পাইনি। 

▪মহামানব তুল্য বিজ্ঞানীদের বিন্দুমাত্র অসম্মান না দেখিয়ে, মজা করে, তাদের নিয়ে কৌতুক করে বইয়ের মূল সুর বাজিয়ে গেছেন লেখক; আমার কেবল মনে হয়েছে কোনও অপার্থিব মিউজিক শুনেছি পুরোটা সময়। সেই সাথে বক্কর ভাই, আক্কাস ভাই রকস! 

▪ব্যতিক্রমধর্মী কার্টুন, ছবির সংযোজনের মাধ্যমে বইটি অনন্য উচ্চতা পেয়েছে। আর সাবলীল লেখনশৈলীর কারণে বইটি আনপুটডাউনেবল, পড়তে পড়তে কয়েকবার আপন মনে হেসে উঠেছি, কয়েকবার চোখ বন্ধ করে আকাশের (লকডাউন চলছে, বাসার ছাদ) দিকে মুখ তুলে কিছু কল্পনা করার ভাব ধরেছি! অনেকদিন পর সত্যিকারের মজা নিয়ে বিজ্ঞানের একটা বই পড়লাম (আংশিক)।  

▪আমি কেবল প্রথম ৭২ পৃষ্ঠা পড়েছি। বাকীটা পড়ার জন্যে মুখিয়ে আছি। লকডাউন খুলে গেলেই যোগাড় করে নেব। তারপর প্লেনে চড়ে এখানে আসতে যতটুকু সময় লাগে। 

▪সুযোগ থাকলে অবশ্যই বইটি যোগাড় করে সবার পড়ে ফেলা উচিত। তারপর কিছুদিন পরপর রিভিশন। হ্যাপি রিডিং 

▪বুক রিভিউ(৪):-  

▪বইঃ চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স 

▪লেখকঃ নাঈম হোসেন ফারুকী  

▪প্রথম কথা, বই এর নাম চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স হইলেও, সাথে চা কফি নিয়ে না বসাই ভালো।

বই পড়তে পড়তে অনেক কিছু চিন্তা করতে হবে, ভাবতে হবে। ভাবতে ভাবতে কখন চা ঠান্ডা হয়ে যাবে, টের পাওয়া যাবে না :p 

▪আমার মনে হয়, এইটা বাংলা ভাষায় প্রথম বই, যেখানে মডার্ন ফিজিক্স এর গল্পের সাথে সাথে প্রচুর ম্যাথ ও আছে। 

বাজারের অন্যান বিজ্ঞানের বইতে, একটা টপিকের উপরে দেখা যায় শুধু একটা কাহিনী বলে চলে যায়। তার ম্যাথমেটিকাল কোন ইন্টারপ্রিটেশন থাকে না।

▪ এতে অনেক সময়ই পুরা মজা টা পাওয়া যায় না। এই বই এর সবচেয়ে প্লাস পয়েন্ট হচ্ছে, সব কিছু এনালজি দিয়ে বুঝানো চেষ্টা করে হয়েছে।

এনালজি গুলাও ছিল অনেক ভালো। যাদের ম্যাথমেটিকাল এক্সপ্রেশন থেকে একটা জিনিস ভিজুয়ালাইজ করতে কষ্ট হয়, তাদের জন্য অনেক কাজে লাগবে। 

কলেজে থাকতে, একবার এক স্যার কে জিজ্ঞেস করেছিলাম, স্পিন এর ভ্যাল্যু -১/২ আর  +১/২ কেন? +১ আর -১ হইলেই তো হয়। উত্তর পাই নাই।

▪ পরে, এইটা তো মুখস্ত করছিলাম ই, সাথে কোন অর্বিটাল এর শেইপ কেমন, সেইটাও। তখনো আমার মাথায় ঢুকত না, অর্বিটাল এর শেইপ এইরকম অদ্ভুত কেন হবে।

এই বই পড়ে বিষয় টা অনেকটাই ক্লিয়ার। অনেক দিনের অজানা  প্রশ্নের উত্তর পাওয়ার মতো আনন্দের আর কিছু নাই। 🙂 

▪সাথে ডাবল স্লিট এক্সপেরিম্যান্ট টাও যে কি জোস জিনিস, সেইটাও বোঝা যাবে। এতোদিন ভাবতাম, এইটা কি এক ঘোড়ার ডিমের পরীক্ষা, যেইটা কইরা এত বিখ্যাত হয়ে গেল 😛  এক্সপেরিমেন্ট এ ইলেক্ট্রন কে দেখার চেষ্টা করলে, সে কিভাবে তার বিহেভিয়ার পরিবর্তন করে, এইটা পড়ে রীতিমত হা হয়ে যাইতে হয়।

▪ কলেজে একটু খালি জায়গায় ছিল, যে আলো তরঙ্গ আর কণা, দুই রকম ই আচরণ করে। কথাটার আগা মাথা কিছুই বুঝতাম না। এখন কিছুটা মাথায় ঢুকসে 🙂 

▪এরপর আছে, ওয়েভ ফাংশন কল্যাপ্স। এই বই এর সবচেয়ে মজা পাইসি এই চ্যাপ্টার টা পরে। অনিশ্চয়তার নীতি খালি পড়ে আসছিলাম, যে অবস্থান জানলে ভরবেগ জানা যাবে না। কেন যাবে না, জীবনেও বুঝি নাই। জানলে কি সমস্যা সেইটাও বুঝতাম না। 

▪এখনো যে পুরাপুরি বুঝি তা বলব না, কিন্তু অনেকখানি ক্লিয়ার আগের চেয়ে।  

▪আমাদের কলেজের ক্যামিস্ট্রি বইতে, স্রোডিঞ্জার এর ইক্যুয়েশন নাম এ একটা বিদ্ঘুটে সমীকরন ছিল। এইটা নাকি প্রায় ই বোর্ড এ আসে, তাই ধুমায়া মুখস্ত মারছিলাম। পরে এইটা আমাদের বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষাতেও আসছিল।  

▪১০ মার্ক কনফার্ম পাইয়া গেসিলাম। কিন্তু জীবনেও এই সমীকরনের কোন টার্ম কি মিন করে, কিছুই বুঝি নাই। তাই এই বই লেখার সময় যখন শুনছিলাম এতে স্রোডিঞ্জার ইক্যুএশন এর ব্যাখা থাকবে, তখন থেকেই বসে আছি, যে কবে বইটা বের হবে।  

▪অনেক দিন পর, কানার মতো একটা সমীকরন মুখস্ত করার অপরাধবোধ থেকে মুক্তি পেলাম।  

▪বই এর শেষের দিকের বিষয় গুলা, যেমন কোয়ান্টাম এনট্যাঙ্গেল্ম্যান্ট, বেলের অসমতা, জিনিস গুলো নতুন ছিল। তবে আলোর চেয়ে বেশি বেগে যে ইনফ্লুয়েন্স পাঠানো যায়, সেইটা দেখে অবাক হয়েছি।   

চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স bangla pdf download

▪তবে চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স   বই এর শুরুতে একটা কথা মিসলিডিং মনে হয়েছে,  নাইন টেনের ফিজিক্স ম্যাথ বুঝতে হবে বলা ছিল।

শুনে মনে হয় যে, নাইন টেনের একটা ছেলে বই পড়ে বুঝতে পারবে। আমার মনে হয় পুরাপুরি বুঝতে গেলে, আরেকটু নলেজ লাগবে।  

▪কিছু জিনিস আরেকটু ব্যাখা করলে ভালো হইত মনে হয়, যেমন n Dimensional  ভেক্টর আসলে কি জিনিস।  একটা সময় এসে মনে হয়েছে ম্যাথ ডিফিকাল্টি অনেক দ্রুত বেড়ে যাচ্ছিল। এইটা হয়তো এভোয়েড করার উপায় ও ছিল না। 

▪তাই চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স বইটা    পড়ার সময় বিরতি নিয়ে পড়া দরকার। একটা জায়গা না বুঝে সামনে না আগানোই ভালো।

বই এর মাঝে মাঝে কিছু পাজল আছে, সেগুলা সময় নিয়ে চিন্তা করা দরকার।  বেলের অসমতা চ্যাপ্টার এ বক্কর ভাই আর লক্কর আপু আলোর বেশি বেগে কিভাবে জানি যোগাযোগ করে ফেলেছিল, ব্যাপারটা এখনো সল্ভ করে উঠতে পারি নাই। কয়দিন লাগবে কে জানে 🙁

▪বুক রিভিউ(৫):- 

▪কখনো বইয়ের রিভিউ লিখব ভাবতেও পারি নাই। একে তো বুদ্ধি বয়স অনুযায়ী কম তার উপর বয়সও কম কিন্তু সাহস করে বিসিবি’র কনটেস্টর জন্য প্রথমবার লেখলাম।

লেখার মান ভালো না হলেও এরপর চেষ্টা করছি লেখতে। তার ধারাবাহিকতায় বড় লেভেলের একটা বইয়ের রিভিউ লিখছি আজ। 😀

📚বইয়ের নামঃ Cha coffe ar quantam mechanics/চা কফি ও কোয়ান্টাম মেকানিক্স 

🙇 লেখকের নামঃ নাঈম হোসেন ফারুকী 

▪ভালো বই বলতে আমরা কী বুঝি তার উপর নির্ভর করে   বইটি কেমন!! যদি বিজ্ঞানের বেলায় বলি ভালো বই হলো ঐসব বই যেগুলো আপনাকে ভাবাতে সাহায্য করে আর যেকোনো ভালো বই এমনিতেই পাঠক ধরে রাখে।

এটা তেমনই একটা বই যেটা আপনাকে ভাবাতে বাধ্য করবে আবার সাথে শিখায়ও আর পাঠক ধরে রাখার জন্য যেখানে কৌতুক খুঁজে পাবেন না সেখানেই লেখককে কৃতিত্ব দিবে হবে।

▪ কারণ সেখানে সহজ সাবলীল ভাষায় ফুটিয়ে তুলে ধরেছে কোয়ান্টাম জগতের সেই অদ্ভুতুরে জগৎকে। যে জগতে ঘুরে আসতে ভালোই লাগছিল।

▪ চা পানের বিরতিগুলো ছিল অসাধারণ। তবে চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স  বইটিতে কিছু জায়গায় টপিক পাল্টাতে গিয়ে একটু বুঝতে সমস্যা হয়েছে।

এটি একাধারে পপ-সায়েন্সেরও মতো করে বিজ্ঞানের কঠিন দিকটা সহজ করে ফুটিয়ে তুলেছে। মানুষকে ভাবাতে শুধু চেষ্টাই করে নাই ভাবাতে বাধ্য করেছে।

▪ আরেকটা দিক অনেক ভালো লেগেছে সেটা হলো এখানের গ্রাফগুলোতে লেখক পটুয়াখালীকে অনেকবার তুলে ধরেছেন😀।

▪ তাই আর দেরী না করে Cha coffe ar quantam mechanics bangla pdf download /চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স bangla pdf বই টা ডাউনলোড করতে নিচের ডাউনলোড বাটন এ ক্লিক করুন।  

চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স pdf download
pdf download

Size:-3Mb

▪বিঃদ্রঃ যাদের সামর্থ্য আছে তারা চা কফি আর কোয়ান্টাম মেকানিক্স     বইটির হার্ড কফি কিনুন :- 

rokomari.com

Aadi.com.bd

Boierduniya.com

Bookiecart.com

Tags

ADR Dider

Best bangla pdf download, technologies tips,life style and bool, movie,smartphone reviews site.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close
Close

Ad blocker detected

Plz turn off your ad blocker to continue in this website...